কলারোয়ায় সোনালী ব্যাংকের দুই নৈশ প্রহরী হত্যার তৃতীয় বছরে পদার্পন

আপডেট : July, 16, 2017, 10:36 am

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি, এম এ কাশেম: সাতক্ষীরার কলারোয়ায় সোনালী ব্যাংক ডাকাতি করতে এসে দুই নৈশপ্রহরীকে (আনসার সদস্য) জবাই করে হত্যার লোমহর্ষক ঘটনায় আজ তৃতীয় বছরে পদার্পন। ২বছর পার হলেও ওই ঘটনায় দায়েরকৃত মামলাটি যেন রয়েছে ঝুলন্ত। দীর্ঘ দিন ধরে এই মামলাটির চার্জশিট না হওয়ায় এমনটির দাবী করলেন মামলার বাদী ও তাদের পরিবার। যার কারণে মামলার বাদী ও নিহতের পৃথক দুই পরিবার সঠিক বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন বলে মনে করেন।
প্রসঙ্গত: ২০১৫ সালের ১৫জুলাই সোনালী ব্যাংকের দুই নৈশ প্রহরীকে কুপিয়ে ও জবাই করে হত্যা করেছিল দূর্বৃত্তরা। সেই মর্মান্তিক ্ও স্পর্শকাতর দিনটি ছিলো বুধবার, পবিত্র শবে কদরের রাত ২৭ রমজান। ঐ কালো রাতে সাতক্ষীরা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয় মামলার তদন্ত গুরুভার। অপরপক্ষে কিছু ব্যক্তিকে আটক করে জেল হাজোতে প্রেরণ করেন গোয়েন্দা পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ইমরান হোসেন। সেই বছরেই মামলাটি আবার সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়।বর্তমানে মামলাটি সাতক্ষীরা সিআইডি বিভাগে চলমান আছে।নিহত আনসার সদস্য কলারোয়া উপজেলার ঝাঁপাঘাট গ্রামের কায়েম হোসেনের পুত্র জাহাঙ্গীর (৩২) ও সাতক্ষীরা সদর উপজেলার হরিশপুর গ্রামের আনারুল ইসলামের পুত্র আসাদ (২৫)।এ ঘটনায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সাতক্ষীরা সিআইডির ইন্সপেক্টর মেজবাহ উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, মামলার চার্জশিট অতিসত্ত্বর দাখিল করবেন। মামলার তদন্তের স্বার্থে তিনি আর কিছু বলতে রাজি হননি।নিহত জাহাঙ্গীর ও আসাদের পরিবার হত্যাকারীদের বিচারের দাবি করেন এবং সেটি দ্রূত চার্জশিট প্রদানের অনুরোধ জানান

Facebook Comments

103331
Total Users : 3331