চুনারুঘাটে এক পরিবারের সম্পত্তি হননের চেষ্টায় প্রভাবশালী মহল

আপডেট : July, 16, 2017, 7:27 pm

চুনারুঘাট প্রতিনিধিঃ চুনারুঘাটে মাইনরটি এক সম্প্রদায়ের বিপুল পরিমাণ সম্পত্তি থেকে ওয়ারিশানদের বঞ্চিত করার মানসে আট-ঘাট বেঁধে মাঠে নেমেছে একটি প্রভাব মহল। প্রয়াত হিন্দু ঐ মহিলার সম্পত্তি নামে-বেনামে এখন প্রভাবশালীদের দখলে রয়েছে। এ নিয়ে আদালতে মামলা চললেও প্রভাবশালী মহলটি ঐ দখলে রাখতে মরিয়া। এলাকাবাসীরা জানান, উপজেলার আহম্মদাবাদ ইউনিয়নের ঘনশ্যামপুর গ্রামের মৃতঃ গোবিন্দ চরণ নাথের মেয়ে শ্রীমতি কাছনি নাথ ইসলাম ধর্ম গ্রহন করে একই গ্রামের জমশের উল্লাহর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। জমশের উল্লাহর ওড়শে ও কাছনির গর্ভে  জন্ম নেন একে একে পাঁচ সন্তান। ঐ কাছনি নাথ যিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহন করে রুপচাঁন বিবি নাম ধারন করে প্রায় আঠার কেয়ার জমি রেখে মৃত্যু বরণ করলে নানা কৌশলে ঐ সম্পত্তি প্রভাবশালীরা দখলে নেয়। এদিকে, কাছনি নাথের গর্ভের সন্তানরা প্রাপ্ত বয়স্ক হবার পর মৃতঃ মায়ের ঐ সম্পত্তি ফিরে পেতে আদালতের দ্বারস্থ হন এবং আহম্মদাবাদ ইউনিয়নের তৎকালীন চেয়ারম্যান আঃ লতিফ ২০১০ সালের ১৫ জুন কাছনি নাথের ওয়ারিশান হিসাবে তাদের সনদ প্রদান করেন।
পরবর্তীতে, ২০১২ সালের ১৭ জুন ওই পাঁচ জনকেই একই সনদ প্রদান করেন বর্তমান চেয়ারম্যান আবেদ হাসনাত চৌধুরী সনজু।
এদিকে, আদালতের রায়ে কাছনি নাথ ওরফে রুপচাঁন বিবির সন্তানদের পক্ষে রায় চলে আসার সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে দখলবাজ ও তাদের পক্ষের লোকজনকে সাথে নিয়ে ১৬ জুলাই রবিবার চেয়ারম্যান সনজু চৌধুরীর বিরুদ্ধে ভূঁয়া ওয়ারিশান সনদ প্রদানের দোহাই তুলে মানববন্ধন করে।
কাছনি নাথের পুত্র চুনু মিয়া বলেন, প্রাক্তণ চেয়ারম্যানের প্ররোচনায় একটি স্বার্থান্বেষী মহল মায়ের সম্পত্তি থেকে আমাদেরকে বঞ্চিত করার হীন ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে।
এ ব্যাপারে,
চেয়ারম্যান সনজু চৌধুরী এক প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে বলেন, “প্রাক্তণ চেয়ারম্যান সাহেবের ওয়ারিশান সনদের উপর ভিত্তি করে আমি সনদ প্রদান করেছি তবে, যেদিন থেকে উপজেলা পরিষদে নির্বাচনে অংশ গ্রহনের ঘোষনা দিয়েছি সেদিন থেকে রাজৈনতিক প্রতিপক্ষরা আমার বিরুদ্ধে নানান অপপ্রচার চালাচ্ছে এবং ষড়যন্ত্র করছে। আমি জননেত্রী কর্তৃক নৌকার মনোনয়ন পেলে যত ষড়যন্ত্রই হউক জনগনকে সাথে নিয়ে তা মোকাবেলা করতে প্রস্তুত আছি।”

Facebook Comments

103331
Total Users : 3331